অলস সময় কাটাচ্ছেন ভোটশূন্য কেন্দ্রের পোলিং এজেন্টরা

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চতুর্থ ধাপে ২২ জেলার ১০৭টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ১২০ ভোটকেন্দ্রের মধ্যে অধিকাংশই ভোটারশূন্য কেন্দ্রগুলোতে দেখা গেছে অলস সময় কাটাচ্ছেন পোলিং এজেন্টরা। কেন্দ্রের বাহিরে ও ভেতরে দেখা মেলিনি কোনো ভোটারের।

রবিবার (৩১ মার্চ) সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। উপজেলা সদরের মির্জাপুর এসকে পাইলট মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, পুষ্টকামুরী আলহাজ শফিউদ্দিন মিঞা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মির্জাপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়কেন্দ্র, বাওয়ার কুমারজানি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

এদিকে একই অবস্থা উপজেলার মহেড়া, জামুর্কি, ফতেপুর, বানাইল, আনাইতারা, ওয়ার্শি, ভাদগ্রাম, ভাওড়া, বহুরিয়া, লতিফপুর, গোড়াই, আজগানা, তরফপুর ও আজগানা ইউনিয়নের অধীনে ১২০টি ভোটকেন্দ্র। এই কেন্দ্রগুলো ভোটারশূন্য। সকাল থেকে এখানে অলস সময় কাটাচ্ছেন পোলিং এজেন্টরা।

মির্জাপুর থানার ওসি একেএম মিজচানুল হক গণমাধ্যমকে বলেন, ১২০ কেন্দ্রের মধ্যে ৭০ কেন্দ্রই গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করে বিপুলসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

তবে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে জানা যায়, নির্বাচন পরিচালনার জন্য ৬ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ৫০০ পুলিশ বাহিনী, ১৫০০ আনসার, ৪০ বিজিবি সদস্য ও স্টাইকিং ফোর্স নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

নির্বাচন সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণভাবে গ্রহণের লক্ষ্যে উপজেলার একটি পৌরসভা ও ১৪ ইউনিয়নের ১২০টি ভোটকেন্দ্রের জন্য ১২৬ প্রিসাইডিং অফিসার, ৭৮৯ সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার এবং এক হাজার ৬৭০ পোলিং অফিসার দায়িত্ব পালন করছেন।

এদিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল মালেক বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে গ্রহণের লক্ষ্যে প্রশাসন থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ভোটাররা ভোটকেন্দ্রে আসতে শুরু করেছে। নির্বাচন নিরপেক্ষ, সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও গ্রহণযোগ্য করতে নির্বাচন কমিশন ও স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব প্রকার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

আমাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এই বিভাগের পোস্ট

Back to top button
Close