আন্তর্জাতিক

জামাল খাসোগি হত্যা: ১৭ সৌদি নাগরিকের ওপর নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের

খাসোগিকে হত্যার অভিযোগ অস্বীকার করতে গিয়ে নানা নাটকের জন্ম দিয়েছে সৌদি আরব

যুক্তরাষ্ট্রে স্বেচ্ছা নির্বাসনে থাকা সৌদি নাগরিক ও সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে তুরস্কে হত্যার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে মরুভূমির দেশটির ১৭ নাগরিকের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে আমেরিকা। স্থানীয় সময় ১৫ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার আমেরিকার অর্থমন্ত্রী স্টিভেন মানুচিনের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানায় নিউ ইয়র্ক পোস্ট।

নিষেধাজ্ঞা দেওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের সাবেক উপদেষ্টা সৌদ আল-কাহতানি ও সৌদি কনসাল জেনারেল মোহাম্মেদ আলোতাইবি। যদিও এসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে ঠিক কী রকমের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে তা এখনো জানানো হয়নি।

এক বিবৃতিতে স্টিভেন মানচিন বলেন, ‘এই নিষেধাজ্ঞার ফলে খাসোগি হত্যাকাণ্ডে জড়িতরা যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করা এবং কাজ করার ক্ষেত্রে বিপাকে পড়বেন। সৌদি সরকারের খাসোগির মতো এমন হত্যাকাণ্ড বন্ধে পদক্ষেপ নিতে হবে।’

চলতি বছরের ২ অক্টোবর খাসোগি তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি আরবের কনস্যুলেটে প্রবেশ করেন। কিন্তু পরে আর বের হয়ে আসেননি। পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদপত্রে প্রতিবেদন প্রকাশ হতে থাকে যে, তাকে কনস্যুলেটের ভেতর হত্যা করা হয়েছে।

এদিকে খাসোগিকে হত্যার অভিযোগ অস্বীকার করতে গিয়ে নানা নাটকের জন্ম দিয়েছে সৌদি আরব। প্রথম দিকে ঘটনার দায় অস্বীকার করে দেশটি। পরে বিশ্বজুড়ে কড়া সমালোচনার মধ্যে চাপে পড়ে হত্যার দায় স্বীকার করে নেয় তারা। তখন থেকেই ধারণা করা হচ্ছিল যুক্তরাষ্ট্র এ হত্যার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি দিতে পারে। কিন্তু মাঝেমধ্যে এ বিষয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইট শাস্তির বিষয়ে সন্দিহান করে তুললেও এই নিষেধাজ্ঞা সৌদি আরবের জন্য একটি ধাক্কা।

Close
Close