আন্তর্জাতিক

নিউজিল্যান্ডের পর এবার অস্ট্রেলিয়ায় মসজিদে গাড়ি হামলা

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুইটি মসজিদে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে এবার অস্ট্রেলিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের কুইন্সল্যান্ড প্রদেশের একটি মসজিদে গাড়ি হামলা চালিয়েছে এক তরুণ। শনিবার মুসল্লিরা যখন নামাজ পড়ছিলেন ঠিক তখন ওই হামলাকারী গাড়ি নিয়ে মসজিদের দরজায় আঘাত হানেন বলে জানা গেছে। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। খবর নিউজ অস্ট্রেলিয়া।

কুইন্সল্যান্ড পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নেভিলে স্ট্রিটের পাশে গাড়ি চালানোর পর বায়তুল মাসরুর মসজিদের প্রবেশপথে গাড়ি চালিয়ে দেন ওই হামলাকারী। পরে রাতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মসজিদের সামনের দরজায় গাড়ি চালিয়ে দেয়ায় প্রবেশপথ সামান্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, মসজিদের প্রবেশ পথে গাড়ি চালিয়ে দেওয়ার পর গাড়ির সামনের দরজা খুলে মসজিদের মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে গালি-গালাজ করেন অভিযুক্ত তরুণ। পরে গাড়ি নিয়ে বাসায় ফিরে যান তিনি। সেখান থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

শনিবার বিকেলের দিকে লোগান সিটির ব্রাউন প্লেইনসের বাসিন্দা ২৩ বছর বয়সী ওই হামলাকারী তরুণের ড্রাগ টেস্ট করা হয়েছে। এতে তার শরীরে মাদকের উপস্থিতি পাওয়া যায়। পরে তার গাড়ি চালানোর লাইসেন্স ২৪ ঘণ্টার জন্য স্থগিত করা হয়েছে।

মাদকাসক্ত অবস্থায় গাড়ি চালানোর দায়ে তাকে আদালতে হাজিরের নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। পুলিশি জিম্মা থেকে মুক্তি পাওয়ার পর ওই তরুণ গাড়িতে ফিরে যান। পরে বায়তুল মাসরুর মসজিদের দরজায় গাড়ি চালিয়ে দেন তিনি।

মসজিদে হামলা চালিয়ে বাড়িতে ফিরে যাওয়ার পর ওই তরুণকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ইচ্ছাকৃতভাবে সম্পদ ধ্বংস, জন-অশান্তি সৃষ্টি ও লাইসেন্সের স্থগিত উপেক্ষা করে গাড়ি চালানোর অভিযোগ আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

গত শুক্রবার জুম্মার নামাজের সময় নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত ব্রেন্টন ট্যারেন্ট বন্দুক হামলা চালায়। এতে ৫০ জনের প্রাণহানি ঘটে। এছাড়া আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে আরো অন্তত ৪৯ জন।

আমাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
Back to top button