ধর্ম অবমাননায় সেফুদার বিরুদ্ধে নেয়া হচ্ছে আইনি ব্যবস্থা

ইসলাম ধর্ম এবং মুসলমানদের পবিত্র গ্রন্থ কোরআন শরিফ অবমাননাকারী সেফায়েত উল্লাহর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে ভিয়েনাস্থ মুসলিম কমিউনিটির নেতারা। শুক্রবার বাদ জুমা এ বিষয়ে আলোচনা হয়।

ভিয়েনাস্থ বায়তুল মোকাররম জামে মসজিদের সভাপতি আবিদ হোসেন খান তপন জানান, সেফায়েত উল্লাহ মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়েছে; যা সবার কাছে ঘৃণিত এবং নিন্দনীয়। সেজন্য বাদ জুমা আলোচনায় এ সিদ্ধান্ত হয় যে, প্রত্যেক মসজিদ থেকে দুজন সদস্যকে নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হবে। সে কমিটি ভিয়েনাস্থ ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক সেন্টারের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সমন্বয় করে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে; যাতে ভবিষ্যতে এ ধরনের কর্মকাণ্ড থেকে তিনি বিরত থাকেন।

আবিদ হোসেন খান তপন জানান, কোনো ধরনের আক্রমণাত্মক পন্থা গ্রহণ না করে আইনি প্রক্রিয়ায় যাওয়াটাই শ্রেয়। সবাইকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, শিগগিরই সেফায়েত উল্লাহর অস্ট্রিয়ার প্রচলিত আইনে বিচার হবে এবং সর্বোচ্চ শাস্তি হবে।

গত বুধবার (১৭ এপ্রিল) ফেসবুক লাইভে এসে ইসলাম ধর্ম এবং নবী মুহম্মদকে (স.) নিয়ে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দেন সেফাত উল্লাহ, যিনি সেফুদা নামেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশি পরিচিত। বিতর্কিত ভিডিও ব্লগার সেফাত উল্লাহ মুসলমানদের পবিত্র গ্রন্থ কোরআন শরিফকে বাজেভাবে অবমাননা করেন, যা ভিয়েনাস্থ মুসলমান ছাড়াও সারা বিশ্বের মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে। বিভিন্ন দেশের মুসলমানরা সেফায়েত উল্লাহর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। এ ছাড়া সেফায়েত উল্লাহকে বাংলাদেশে এনে ফাঁসির দাবি জানান অনেকেই।

-জাগো নিউজ

আমাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এই বিভাগের পোস্ট

Back to top button
Close