এই মুহূর্তে মামলায় হস্তক্ষেপ করতে চান না হাইকোর্ট

ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তদন্ত কার্যক্রম সঠিক পথেই চলছে বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট।

আদালত বলেছেন, আমরা তো মামলার তদন্ত কার্যক্রমে সরকারের কোনো অবহেলা দেখছি না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে মনিটরিং করছেন। পিবিআই (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) তদন্ত করছে। মামলার তদন্ত সঠিক পথেই রয়েছে।

তাই তাদের তদন্ত কার্যক্রমে ব্যাঘাত যেন না ঘটে, সেজন্য এখনই এ বিষয়ে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করতে চাই না। তবে আদালত আগামী ২৮ এপ্রিল পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের মঙ্গলবার এ মন্তব্য করেন। রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত, পিবিআইকে বাদ দিয়ে র‌্যাব দিয়ে মামলার তদন্ত করা এবং রাফির পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে করা এক রিট আবেদনের শুনানিকালে এ মন্তব্য করেন আদালত।

রিট আবেদনে ওই ঘটনায় দায়ী আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। আদালতে রিট আবেদনকারী সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড. ইউনুছ আলী আকন্দ নিজেই শুনানি করেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

যৌন নির্যাতনের অভিযোগে গত ২৭ মার্চ একই মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে মামলা করেন নুসরাতের মা শিরিন আক্তার। এই মামলা প্রত্যাহারে রাজি না হওয়ায় গত ৬ এপ্রিল পরীক্ষার হল থেকে ডেকে নিয়ে নুসরাতের শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয় মুখোশধারী ও বোরকা পরা দুর্বৃত্তরা।

অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় প্রথমে তাকে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। কিন্তু তার অবস্থা মারাত্মক হওয়ায় তাকে ফেনী সদর হাসপাতালে ও পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় নুসরাত গত ১০ এপ্রিল বুধবার রাতে মারা যায়। নুসরাতের শরীরে আগুন ধরিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে পৃথক একটি মামলা হয়েছে। এই মামলায় তদন্ত করছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

আমাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এই বিভাগের পোস্ট

Back to top button
Close