প্রশ্নপত্রে পর্ন তারকার নাম যুক্ত করা শিক্ষক বরখাস্ত

পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে পর্ন তারকা অভিনেত্রী সানি লিয়ন ও মিয়া খলিফার নাম যুক্ত করার ঘটনায় রামকৃষ্ণ মিশন উচ্চ বিদ্যালয়ের সেই অভিযুক্ত বাংলার শিক্ষক শংকর চক্রবর্তীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বিধি অনুসারে তাতে স্থায়ীভাবে চাকরিচ্যুত করারও উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ।

প্রশ্নপত্র নিয়ে সমালোচনার প্রেক্ষাপটে শনিবার অভিযুক্ত শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করে শোকজ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধান শিক্ষক জয় প্রকাশ সরকার। একই সঙ্গে প্রধান শিক্ষক বলেছেন, সকলের কাছে রামকৃষ্ণ মিশনের যে মর্যাদা সেখানে শিক্ষকের অপরাধ ক্ষমার অযোগ্য।

প্রধান শিক্ষক জয় প্রকাশ সরকার আরো বলেন, শংকরের ভুলে রামকৃষ্ণ মিশনের এতদিনের সুনাম আজ প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। আমরা কোনোভাবেই বিষয়টিকে হালকা করে দেখছি না। মিশনের প্রধান এখন ঢাকার বাইরে আছেন, তিনি ফিরলেই কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ইতোমধ্যেই তাকে সকল কাজ থেকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে। প্রক্রিয়া চলছে শোকজের জবাবের পরই তাকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করা হবে। দেশের মানুষের কাছে সুশীল সমাজের কাছে রামকৃষ্ণ মিশন যে শ্রদ্ধার পাত্র সেখানে এ ধরনের কাজ মানা যায়না। ওই শিক্ষক ভুল করছে কিন্তু রামকৃষ্ণ মিশনতো ভুল করবে না।

এক প্রশ্নের জবাবে প্রধান শিক্ষক বলেন, কারণ দর্শানোর জন্য ওই শিক্ষককে পাঁচ দিনের সময় দেয়া হয়েছে। বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেবে বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদ ও রামকৃষ্ণ মিশনের পরিচালক।

এদিকে এ ধরনের ঘটনায় রীতিমতো বিব্রত শিক্ষা মন্ত্রানালয়ও। আগের দিন শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দিপু মনির উদ্বেগ প্রকাশের পর শনিবার এক অনুষ্ঠানে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, এরকম ভুল আর হবে না, সেটা বলছি না। চেষ্টা করছি যেন এরকম ভুল কেউ না করে। এটি স্কুল পর্যায়ের প্রশ্নপত্র। আমাদের লাখ লাখ স্কুল, মনিটরিং করা খুব কঠিন।

তিনি আরো বলেন, যে শিক্ষক এই প্রশ্ন করেছেন তিনি ক্ষমা চেয়েছেন। এটা মানবিক ভুল। পত্রিকায় সবসময় যাদের নাম দেখা যায় তা ব্যবহার করেছেন প্রশ্নে। উপলব্দি করতে না পেরে মানবিক ভুল করেছেন। আপাতত মনে হচ্ছে, এর পেছনে কিছু নেই। উনার ব্যাখ্যাটা পরিপূর্ণ। তারপরও খতিয়ে দেখা হবে। ভুলের পেছনে কোনো কারণ আছে কি-না তা দেখা হবে।

বিতর্কিত বিষয়ে গণমাধ্যমে অতিরিক্ত আলোচনার বিষয়ে নেতিবাচক মনোভাব প্রকাশ করে বলেন, গণমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ, আপত্তিকর বিষয় ও ব্যক্তি নিয়ে যেন কম আলোচনা করা হয়।

এর আগে পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে পর্ন তারকা অভিনেত্রী সানি লিয়ন ও মিয়া খলিফার নাম যুক্ত করে রীতিমতো শোরগোল ফেলে দেয় রাজধানীর রামকৃষ্ণ মিশন উচ্চ বিদ্যালয়। কেবল নাম যুক্ত করেই ক্ষ্যান্ত হননি প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ।

নবম শ্রেণির বাংলা পরীক্ষার প্রশ্নে জানতে চাওয়া হয়েছে, ‘বিশ্বকবি রবীন্দ্রাথ ঠাকুরের পিতার নাম কী?’ প্রশ্নের সম্ভাব্য যে চারটি উত্তর দেয়া হয়েছে, তার মধ্যে রয়েছে পর্ন তারকা মিয়া খালিফার নাম! বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি উপন্যাসের প্রশ্নে লেখক হিসেবে রাখা রয়েছে সানি লিয়নের নাম!

বাংলা প্রথম পত্রের বহু নির্বাচনী অংশের দুটি প্রশ্নে উত্তরে চারটি অপশনের একটিতে দুই পর্নো স্টার সানি লিওন এবং মিয়া খলিফার নাম ব্যবহার করা হয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রশ্নপত্রে এমন অসংলগ্নতায় সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। প্রশ্নপত্রে কীভাবে পর্নো তারকার নাম অন্তর্ভুক্ত হয়, তা দেখে হতবাক অভিভাবকরা।

এমন প্রশ্নে ই গত বুধবার পরীক্ষা নিয়েছে ঢাকার রামকৃষ্ণ মিশন উচ্চ বিদ্যালয়। প্রশ্নপত্রটির ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা জন্ম দিয়েছে তুমুল সমালোচনার। এছাড়া এই প্রশ্নপত্রে রয়েছে এমন আরও অদ্ভুত বিষয়।

চতুর্থ প্রশ্নটিতে প্রমথ চৌধুরীর পৈতৃক নিবাস কোথায় এমন প্রশ্নের সম্ভাব্য উত্তরে রাখা হয়েছে রাজধানীর বলধা গার্ডেনের কথা। তবে নামটি লেখা হয়েছে ‘বলদা গার্ডেন’।

আমাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এই বিভাগের পোস্ট

Back to top button
Close