সময় এসেছে ফায়ার সার্ভিসের প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক করার!

এই বছরের শুরু থেকে আগুন যেন পরিচিত শব্দ আমার দেশে। কি পুরনো ঢাকা, কি নতুন ঢাকা, কি অফিস, কি কলকারখানা সব জায়গাতে আগুন আতঙ্ক ছড়িয়েছে। তার চেয়েও বড় কথা আগুন লাগলে উৎসুক জনতার ভীড় এই ঘটনাগুলোতে আগুনের লেলিহান শিখা অনেক ক্ষেত্রেই বাড়িয়েছে।

তবে! এমন পরিস্থিতিতে সব ক্ষেত্রে এগিয়ে আসতে দেখেছি আমার দেশের ছাত্র সমাজকে। যে ছাত্র সমাজকে আমি মনে করি, ফায়ার সার্ভিসের প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক ভাবে করালে অনেক ক্ষেত্রে ই শুধু সুফল রাষ্ট্র পাবেই না। বরং আগুন লাগলে জ্যামে নাকাল ফায়ার সার্ভিসের ও সহায়তা হবে।

সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিমানবাহিনীসহ ফায়ার সার্ভিসের টিমকে দিয়ে যদি স্কুল, কলেজে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া সম্ভব হয়! এই দেশে যেখানেই আগুন লাগুক না কেন আমি বলব উন্নত প্রশিক্ষণের ফলে বিশ মিনিটের বেশি আগুন বাড়তে পারবে না।

বাংলাদেশের প্রাথমিক ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এই ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়ার সময় চলে এসেছে বলে আমি মনে করছি। শুধু আগুনের ঘটনায় যে এই উন্নত প্রশিক্ষণের প্রয়োজন তাই নয়! দেশের যেকোন ভুমিকম্প, প্রাকৃতিক সমস্যাসহ এই ছাত্র সমাজ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারবে বলেও আমি মনে করি।

আর উন্নত প্রশিক্ষণ শেষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি কিংবা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রশিক্ষণ সনদ দিয়ে যদি কিছু বক্তব্য রাখেন এই ছাত্র সমাজের মনোবল, দেশপ্রেম আরও বাড়বে। পাশাপাশি সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানেও এই বিশেষ প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক করা দেশের জন্য খুব দরকার হয়ে পড়েছে। একবার ভাবুন! যেকোন বিপর্যয় পরিস্থিতিতে প্রশিক্ষিত আমার দেশের সন্তানগুলো নিজ নিজ জেলায় যদি অবদান রাখে এতে লাভ সরকারের ই হবে এবং দেশের ক্ষয়ক্ষতির পরিমান কমবে।

লেখক:

আরিফ রহমান শিবলী

দক্ষিণ এশিয়ার শিশু গণমাধ্যম প্রধান

ও সিইও, কিডস মিডিয়া।

আমাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এই বিভাগের পোস্ট

Back to top button
Close