অন্যদের পরমার্শ দেওয়া বাদ দিয়ে সড়কের দিকে তাকান, কাদেরকে রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দেশ থেকে সুশাসন বিতাড়িত করে রক্তঝরা শাসননীতির ওপর ভর করে এখন অন্যদের জন্য পরামর্শ কেন্দ্র খুলে বসেছেন।

ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, অন্যদের পরমার্শ দেওয়া থেকে বিরত থেকে সড়কের দিকে তাকান, গণপরিবহনের দিকে তাকান। গণপরিবহনের নৈরাজ্যের দায়, সড়কে হাজার হাজার মানুষের মৃত্যুর দায় আপনি এড়াতে পারবেন না।

মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকালে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন রিজভী।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। তার (খালেদা জিয়া) সুচিকিৎসার কোনো ব্যবস্থা করা হয়নি।

ব্যক্তিগত বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের পরামর্শ নেয়ারও কোনো সুযোগ দেয়া হচ্ছে না। না দেয়া হচ্ছে মুক্তি, না সুচিকিৎসা। আইনত জামিনযোগ্য মামলাতেও জামিন দেয়া হচ্ছে না।

রিজভী বলেন, শুধু নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্যই শেখ হাসিনা প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বিকে বাইরে থাকতে দেননি। কারণ, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রশ্নে আপোষহীন থাকতেন। তাই এখন অসুস্থতা-যন্ত্রণা ও মানসিক নির্যাতনের এক বিষাদঘন পরিবেশে থাকতে বাধ্য করা হচ্ছে। এ মুহূর্তে দেশনেত্রীকে সুচিকিৎসা এবং নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।

তিনি বলেন, মিডনাইট ভোটের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কয়েকদিন আগে পুলিশকে বলেছেন দ্রুত মামলার কাজ নিষ্পত্তি করতে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ পেয়ে আইনশঙ্খলা বাহিনী আগের চেয়ে আরও বেপরোয়া হয়ে গেছে।

বিএনপির এ নেতা বলেন, সারাদেশে থানায় থানায় পুলিশি নিপীড়ন আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। বিএনপি নেতাকর্মী ও সমর্থকদের বিরুদ্ধে যেসব গায়েবি মামলা দায়ের করেছিল সেসব মামলায় চার্জশিট দেয়ার নামে ব্যাপক বাণিজ্য চলছে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থকদের জিম্মি করে মোটা অংকের টাকা আদায় করছে। অন্যদিকে হাজার হাজার নেতাকর্মী যারা কারাগারে বন্দি আছেন, আদালত থেকে জামিন লাভের পর তাদেরকে আবার শ্যোন অ্যারেস্টের নামে হয়রানি ও অর্থ আদায় করা হচ্ছে।

এছাড়া কারাগারের মধ্যে বন্দিদের কাছ থেকেও নানাভাবে প্রতিনিয়ত অর্থ আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন রিজভী।

বিএনপির রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের পুলিশি মামলা দিয়ে হয়রানি করতে গিয়ে বিচার ব্যবস্থাকে নড়বড়ে করে ফেলা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এদেশে আওয়ামী ক্ষমতাসীনরা চাইলেই মামলা দিতে পারে উল্লেখ করে রিজভী বলেন, রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অন্যান্য মিথ্যা মামলার সঙ্গে ড্রাগের মামলা দিয়ে হেয় করা হচ্ছে। আটক বিএনপির বহু নেতাকর্মীদেরকে তাদের আইনজীবীদের সঙ্গে দেখা করতে দেয়া হয় ন।

তিনি বলেন, যে দেশে প্রধানমন্ত্রী তার সমালোচকদের বিরুদ্ধে মামলা করতে উস্কানি দেন, সে দেশে আইন ও বিচার বিভাগ থেকে প্রতিকার পাওয়ার সম্ভাবনাও তিরোহিত হয়ে গেছে।

বিএনপির সিনিয়র এ নেতা আরও বলেন, মিডনাইট ভোটের পর হৃদয়হীন ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিরোধী দলসহ জনগণের সবকিছু লুটে নিতে যেন প্রতিযোগিতায় নেমেছে। আর এই প্রতিযোগিতা করতে গিয়ে তারা নিজেরাই একে অপরের জীবন কেড়ে নিচ্ছেন।

আমাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এই বিভাগের পোস্ট

Back to top button
Close