নভেম্বর 29, 2022

রূপচর্চায় দুধ ও সরের ব্যবহার

দুধ এবং দুধের সর যুগে যুগে ত্বক ও চুলের যত্নে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ঘরোয়াভাবে তো বটেই, বাণিজ্যিক পর্যায়েও। হার্বস আয়ুর্বেদিক ক্লিনিকের রূপবিশেষজ্ঞ আফরিন মৌসুমীর পরামর্শ নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন রিফাত পারভীন।

সেই আদিকাল থেকেই দুধ ও দুধের সর রূপচর্চায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে। বর্তমান সময়েও রূপবিশেষজ্ঞ ও গবেষকেরা ত্বক ও চুলের যত্নে দুধ ও দুধের সরের বিভিন্ন পরীক্ষিত উপকারিতার কথা বলছেন। সাধারণভাবে নিরাপদ এ উপকরণ বিশ্বের বেশির ভাগ দেশেই ব্যবহৃত হয় ঘরোয়া বা বাণিজ্যিকভাবে। বিভিন্ন প্রসাধনী ও স্কিনকেয়ার কোম্পানির জনপ্রিয় ও কার্যকরী পণ্যে দুধ ও দুধের সর ক্রিম উপাদান হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। আজকের আন্তর্জাতিক দুগ্ধ দিবসে দুধ আর দুধের সরে রূপচর্চার ব্যাপারে জেনে নেওয়া যাক।

ইতিহাসে দুধ দিয়ে রূপচর্চার ব্যাপারে প্রথম উল্লেখ আছে সেই খ্রিষ্টপূর্ব ১৩৭২ সালের কথা। খ্রিষ্টপূর্ব ২৫০০ সালের মিসরীয় ভাস্কর্য থেকেও এর প্রমাণ মেলে। নেফারতিতি দুধের সঙ্গে উটপাখির ডিম ও মধু মিশিয়ে ফেস মাস্ক লাগাতেন। ত্বক কোমল রাখতে তিনি ব্যবহার করতেন গাধার দুধ। কারণ না জানলেও মিসরীয়রা দেখেছিলেন, ত্বকের যত্নে দুধের উপকারী ভূমিকা রয়েছে। রানি ক্লিওপেট্রার টক হয়ে যাওয়া দুধ দিয়ে গোসল করার ইতিহাস তো অনেকেরই জানা। উপমহাদেশ ও আরবের দেশগুলোতেও রানিদের দুধ দিয়ে গোসল ও সর দিয়ে রূপচর্চা করার অনেক উল্লেখ রয়েছে বিভিন্ন জায়গায়।